#এইসব দিনগুলি ১

#এইসব_দিনগুলি-১
এখন রাত ১:৪১ মিনিট, বাড়ি ফিরছি।এখন আর আমরা জঞ্জালের শহর ঢাকাতে থাকিনা।এখন থাকি মফস্বল আর পাড়াগায়ের মাঝামাঝি কিছু একটার মতো নারায়নগঞ্জের এক এলাকায়।এখানের যুবকেরা হালফ্যাশন ধরতে গিয়ে বালফ্যাশন টাইপ কিছু একটা ধরেছে।
একা একা হেটে হেটে বাড়ি ফিরছি।কেননা এখানে আমার ঢাকার মতো রাতবিরাতেও কোনো রিক্সাওয়ালা অপেক্ষা করেনা অচেনাদের জন্য।এখানে টংয়ের দোকানগুলোর এতো সময় নেই রাতের পথিকের বা ব্যাচেলরের জন্য।অথবা পুলিশসাহেবদের তেমন আনাগোনা নেই এখানে।

থাকলে এতক্ষনে নিশ্চয়ই কয়েকবার ধরা পড়তাম,ভালই হত হিমু টাইপ কিছু করে বসতাম। আরো একজন আমার জন্য ঢাকা শহরে অপেক্ষা করতো।এখন আর করেনা।আসলে কেউই করিনা,কারোর জন্যই না।থাক তার কথা আরেকদিন বলবো।
আপাতত ভুত এফএম শুনছি কিন্তু বিপদটা হলো আমার ভয় পাওয়ার বদলে হাসি পাচ্ছে।অথচ মধ্যারাতে ভুতের গল্প শুনে ভয় পাওয়া উচিত। ভয় না পাওয়ার ব্যাপারটা বেশি ভৌতিক মনে হচ্ছে।ভয় পাচ্ছিনা দেখে নিজেকে অপরারাধী মনে হচ্ছে।বেচারা রাসেল সাহেব কত কস্ট করে আমাদের ভয় দেখাতে চান অথচ আমি হাসছি।বিষয়টার জন্য একদিন তার কাছে ক্ষমা চেয়ে আসতে হবে।সাথে যদি চা-বিস্কুট কিছু খাওয়ায় সেটা সৌভাগ্য। আমার সাথে হেটে চলেছে পাড়ার কিছু নেড়ি কুকুর।সম্ভবত এই এলাকায় এরাই রাত জাগে।নিজেকে রাজা রাজা মনে হচ্ছে।আমি হাটছি,নিরাপত্তা দিচ্ছে কুকুরবাহিনি।এখনই বাসায় ফেরা ঠিক হবেনা।বরং কুকুরবাহিনীকে নিয়ে এলাকাটা একবার চিনে আসা ভাল।দিনেরবেলা মানুষজন আবার এলাকা চিনতে বের হয়েছি শুনলে হয়ত এলিয়েনের চোখে তাকাবে।এক কাজ করলে ভালো হয়
সবার বাড়ির গেটে বড় করে লিখে দিয়ে আসি,'শুভসকাল,জনাব উল্লুক"
কাছে মার্কার থাকলে সত্যিই করে দিতাম।
রাত ২:২০ বাজে এখন।এখানের রাত আমার জঞ্জালের ঢাকার মতো সুন্দর না।এখন বাড়ি ফিরে যাই,সকালটা দেখতে হবে।এ বিষয়ে অনন্যার কাছে,শুনেছি যার রাত ভালো নয় তার সকালটা ভালো।সেই সুন্দর সকালের অপেক্ষায় রাতের কাছ থেকে বিদায় নিচ্ছি।সবাই সেই সুন্দর সকালের আশায় আছে।রাতের রিক্সাওয়ালা,চাওয়ালা থেকে শুরু করে রাতের পুলিশ এবং তাদের হাতে বন্দী থাকা মানুষগুলোও।



কৃতজ্ঞতা Lt. Shafique

Comments

Popular posts from this blog

How Entrepreneurship Lead me to Workaholism

Online Job | Cover Letter

#এইসব দিনগুলি (শেষ পর্ব)